ব্রেকিং: শপথ নিলেন সংরক্ষিত আসনের নারী এমপিরা শপথ নিলেন সংরক্ষিত আসনের নারী এমপিরা বাংলাদেশিদের জন্য আবারও উন্মুক্ত হচ্ছে আমিরাতের শ্রমবাজার ১৬ হাজার পুলিশ মোতায়েন, শহীদ মিনারে ৪ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা কাল সন্ধ্যা থেকে যেসব এলাকায় গ্যাস থাকবে না মেঘনায় গাজাঁ ও ইয়াবাসহ গ্রেফতার যৌন নিপীড়নের দায়ে কেড়ে নেয়া হলো ধর্মযাজকের পদবি মেঘনা উপজেলা হইতে মহিলা সংরক্ষিত আসনে স্বতন্ত্র সেলিনা ইসলাম এমপি নির্বাচিত সংরক্ষিত আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এমপি হলেন ৪৯ নারী এমপি হিসেবে শপথ নিলেন সৈয়দ আশরাফের বোন

পত্নীতলা আ’লীগের সভাপতি ইসাহাক নিজ বাসায় খুন

জেলা খবর, ব্রেকিং | ২১ অগ্রহায়ন ১৪২৫ | Wednesday, December 5, 2018

   full_2.jpgওয়ার্ল্ড নিউজ বিডি ডট কম,নওগাঁ প্রতিনিধি,০৫ ডিসেম্বর :

নওগাঁর পত্নীতলা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক পৌর মেয়র ইছাহাক হোসেন (৭০) দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে নিহত হয়েছেন।

গতকাল মঙ্গলবার রাত পৌঁনে ১০টার দিকে তার নিজ বাড়ির গেটে এ ঘটনাটি ঘটেছে। এ সময় তার ড্রাইভার দুলাল রায় আহত হয়েছেন। সে বর্তমানে পত্নীতলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছে।

নিহত ইছাহাক হোসেন পত্নীতলা উপজেলা নজিপুর ইউনিয়নের মামুদপুর গ্রামের মৃত: খায়ের মুনসীর ছেলে।

পত্নীতলা থানার ওসি পরিমল চক্রবর্তী জানান, প্রতিদিনের মতো মঙ্গলবার রাতে দলীয় কার্যালয় থেকে কাজ শেষ করে বাসার উদ্দেশে বের হন। গাড়ি থেকে নেমে বাসার গেটে প্রবেশ করার সময় আগে থেকে ওত পেতে থাকা ৪/৫জনের একটি দল সংঘবদ্ধভাবে তার উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে এবং উপর্যুপুরি ছুরিকাঘাত করে। এ সময় তার চিৎকারে ড্রাইভার দুলাল গাড়ি থেকে নেমে এলে তাকেও ছুরিকাঘাত করা হয়।

ড্রাইভার দুলালের চিৎকার ও চেচামেচিতে গ্রামবাসীরা এসে আহত দুজনকে পত্নীতলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। আহত দুলালের বাড়ি নজিপুর ইউনিয়নের চকদূর্গাআয়ন গ্রামের নারায়ণ রায়ের ছেলে। হত্যার ঘটনার সঠিক কোন কারণ জানা সম্ভব হয়নি। দুর্বৃত্তদের গ্রেফতারের অভিযান চলছে।

এ বিষয়ে পত্নীতলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার দেবাসিস রায় জানান, গ্রামবাসীরা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ইছাহাক হোসেন ও তার ড্রাইভার দুলাল রায়কে হাসপাতালে নিয়ে আসার পথিমধ্যেই ইছাহাক হোসেন মারা যায়। আর ড্রাইভার দুলাল রায় বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে। নিহত ইছাহাক হোসেনের মাথায়, বুকে ও গায়েসহ বেশ কিছু স্থানে ছুরিকাঘাতের চিহ্ন রয়েছে।