ব্রেকিং: বাংলাদেশে বেড়াতে এসে এবার ধর্ষণের শিকার পাকিস্তানী কিশোরী অস্ত্র ও গুলি বহন করায় বিমানবন্দরে সাবেক চেয়ারম্যান আটক রতন শিকদার মেঘনা উপজেলা চেয়ারম্যান ও মিলন সরকার ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত নুসরাত হত্যায় গ্রেফতার মনি ৫ দিনের রিমান্ডে ‘হিজড়া’ পরিচয়ে ভোটার হতে নেই বাধা বিজিএমই ভবন সিলগালা ২১ এপ্রিল দিবাগত রাত পবিত্র শবে বরাত দানবীর ৬২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোহাম্মদ মোস্তাক আহমেদ বগুড়ায় ছুরিকাঘাতে বিএনপি নেতাকে হত্যা নুসরাত হত্যায় সরাসরি জড়িত থাকার দায় স্বীকার নূর উদ্দিন-শামীমের

সাংবাদিক ধ্রুবর বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার না হলে তথ্য মন্ত্রণালয় ঘেরাও

ব্রেকিং, মিডিয়া | ২ আষাঢ় ১৪২৪ | Friday, June 16, 2017

press-club_83406.jpgওয়ার্ল্ড নিউজ বিডি ডট কম,মিডিয়া প্রতিনিধি,১৬ জুন : বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর.কম-এর সাংবাদিক গোলাম মুজতবা ধ্রুবর বিরুদ্ধে এক বিচারকের করা আইসিটি অ্যাক্ট- ৫৭ ধারার মামলা প্রত্যাহারের জন্য ৪৮ ঘণ্টা সময় বেঁধে দিয়েছেন সাংবাদিক নেতারা। মামলা প্রত্যাহার না করলে আগামী রবিবার জুন তথ্য মন্ত্রণালয় ঘেরাও করবে বলে হুঁশিয়ারি দেন তারা।

 

গতকাল বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ‘সাংবাদিক ধ্রুবর বিরুদ্ধে বিচারকের দায়ের করা মিথ্যা ও হয়রানিমূলক মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে’ আয়োজিত মানববন্ধনে এ হুঁশিয়ারি দেন সাংবাদিক নেতারা। সাধারণ সাংবাদিকবৃন্দের ব্যানারে এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।

 

মানববন্ধনে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সভাপতি শাখাওয়াত হোসেন বাদশাহ বলেন, ‘সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে একজন বিচারক কীভাবে একটি কালো আইনে অভিযুক্ত ৫৭ ধারায় মামলা করেন? এই আইনটি সাংবাদিকদের কণ্ঠরোধ করার আইন। ফলে ৫৭ ধারা বাতিল না হলে কলম পেশা হুমকির মুখে পড়বে। অবিলম্বে এই কালো আইন বাতিল করতে হবে। আমরা দীর্ঘদিন ৫৭ ধারা বাতিল করার দাবি করে আসছি। আইনমন্ত্রী ও তথ্যমন্ত্রী নিজেও এই আইনটি বাতিলের আশ্বাস দিয়েছেন। ফলে আমরা চাই দ্রুত আইনটি বাতিল করা হোক।’

 

মানববন্ধনে সাংবাদিকরা ৫৭ ধারা বাতিল, ধ্রুবর বিরুদ্ধে দায়ের করা হয়রানিমূলক মামলার নিঃশর্ত প্রত্যাহার করে বিচারককে ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানান। মানববন্ধন সঞ্চালনা করেন ৭১ টিভির সাংবাদিক নাদিয়া শারমিন।

 

প্রসঙ্গত, মানিকগঞ্জের এক বিচারককে নিয়ে প্রকাশিত সংবাদ নিয়ে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর.কম-এর নিজস্ব প্রতিবেদক গোলাম মুজতবা ধ্রুবর বিরুদ্ধে তথ্যপ্রযুক্তি আইনে মামলা হয়। মানিকগঞ্জের জ্যেষ্ঠ সহকারী জজ মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান বাদী হয়ে এই মামলাটি করেন। মামলার এজাহারে প্রতিবেদকের বিরুদ্ধে মিথ্যা তথ্য দিয়ে খবর প্রকাশের অভিযোগ আনা হয়।